আবহমান ঋতু, ঋতুপর্ণ ঘোষের জন্মদিনে আরও একবার তাকে স্বরনে DjM The PhotoFACTORY

আবহমান ঋতু, ঋতুপর্ণ ঘোষের জন্মদিনে আরও একবার তাকে স্বরনে DjM The PhotoFACTORY

Birthday of Bengali Great Film Maker RITUPARNO GHOSH.
আবহমান ঋতু


কর্মজীবন শুরু করেছিলেন বিজ্ঞাপন দিয়ে, তারপর পেরোনো অনেকটা পথ।  আজ তিনি নেই, ফেলে যাওয়া সেই পথে স্মৃতি ঢের, আর শ্রেষ্ঠথের শিরোপা। জাতীয় হোক বা আন্তর্জাতিক প্রায় দু-দশকের এই কর্মজীবনের প্রায় কোনো সম্মানই অধরা ছিল না ঋতুপর্ণ ঘোষের। বারো বার জাতীয় পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছেন, ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে যে নজির খুব একটা মেলে না।

Birthday of Bengali Great Film Maker RITUPARNO GHOSH.
Remember RITUPARNO GHOSH


১৯৯৫ সালে '১৯ শে এপ্রিল' ছবির জন্য প্রথমবার জাতীয় পুরস্কার পান ঋতুপর্ণ ঘোষ, এটি তার দ্বিতীয় ছবি।
পরের জাতীয় পুরস্কার ১৯৯৮ সালে 'দহন' ছবির জন্য।
১৯৯৯ সালে 'অসুখ' ছবির জন্য জাতীয় পুরস্কারে সম্মানিত হন ঋতুপর্ণ ঘোষ।
ওই একই বছরে (১৯৯৯) জাতীয় পুরস্কার পায় ঋতুপর্ণের আরও একটি ছবি 'বাড়িওয়ালী'।
এরপর ২০০১ -এ 'উৎসব', এবং
২০০৩ -এ 'শুভ মহরৎ' তাকে এনে দেয় জাতীয় সম্মান।
২০০৪ ফের জাতীয় পুরস্কারে সম্মানিত ঋতুপর্ণ ঘোষ, সৌজন্যে 'চোখের বালি'
পরের বছর (২০০৫) 'রেনকোর্ট' -এর জন্য ফের জাতীয় পুরস্কার পান ঋতুপর্ণ ঘোষ।
মাঝে কেবল ৩ বছরের ব্যাবধান...
২০০৮ -এ  ফের জাতীয় পুরস্কারে সম্মানিত ঋতুপর্ণ ঘোষ সেরার সেরা শিরোপা পেল তার ছবি 'দ্যা লাস্ট লিয়র'।
পরের বছর (২০০৯) ফের তাকে জাতীয় পুরস্কার এনে দিলো 'সব চরিত্র কাল্পনিক'।
২০১০ -এ জাতীয় মঞ্চে জোড়া সাফল্য পেল ঋতুপর্ণর 'আবহমান'।
প্রবাদপ্রতিম এই পরিচালকের শেষ ছবি 'চিত্রাঙ্গদা', এই ছবিতে দর্শকরা দেখেছিলেন অভিনেতা ঋতুপর্ণ ঘোষকে।
২০১২ -এই  'চিত্রাঙ্গদা'-র হাত ধরে শেষ বারের মতই জাতীয় পুরস্কারের শিরোপা ওঠে ঋতুপর্ণ ঘোষের মাথায়।
শুধুমাত্র জাতীয় আঙ্গিনাই নয়, বিদেশের মাটিতেও সমান ভাবে সম্মানিত হয়েছে বাংলার এই কৃতি পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষ।
বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কৃত হয়েছে তার ছবি 'বাড়িওয়ালী'।
সমসাময়িক পরিচালক থেকে ছবির কলাকুশলী এক কথায় স্বীকার করে যে অভিনয়টা পড়িয়ে নিতে জানতেন ঋতুপর্ণ ঘোষ।  চিত্রনাট্যের প্রয়োজনে গ্ল্যামার কুয়িন কেও ছাপোষা গৃহবঁধুতে পরিনত করে দিতে পারতেন তিনি।
ঋতুপর্ণের ছবিতেও বহু অভিনেতা-অভিনেত্রীকেও তিনি এনে দিয়েছেন জাতীয় সম্মান।

Birthday of Bengali Great Film Maker RITUPARNO GHOSH.
আবহমান ঋতু


'১৯ শে এপ্রিল' -এর জন্য জাতীয় পুরস্কার পায় দেবশ্রী রায়।
'দহন' -এর জন্য সম্মানিত হন ইন্দ্রাণী হালদার ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত।
'বারিওয়ালি' -র জন্য জাতীয় মঞ্চে সম্মানিত হন কিরন খের ও সুদিপ্তা চক্রবর্তী।
'শুভ মহরৎ' -এর জন্য জাতীয় পুরস্কার পান অভিনেত্রী রাখি।
'দোসর' -এর জন্য পুরস্কার পান প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।
অন্যন্যা চট্টোপাধ্যায়ের ঝুলিতে জাতীয় সম্মান এনে দেয় 'আবহমান'।

তিনি নেই...
আছে তার সৃষ্টি,
আর আছে অগুন্তি গুণগ্রাহী।
১৯ শে এপ্রিল থেকে আগস্টের মেমোরি দর্শকের হৃদয়েঋতু আবহমান...।।

Birthday of Bengali Great Film Maker RITUPARNO GHOSH.

Birthday of Bengali Great Film Maker RITUPARNO GHOSH.



বাংলা বিশ্ব চলচ্চিত্র জগতের অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ ওরফে আমাদের ঋতু দা। চলচ্চিত্র জগতে তার অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। চলচ্চিত্র জগতে যে তিনি শুধুই একজন পরিচালক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছিলেন তা কিন্তু মোটেই নয় , পরিচালনার পাশাপাশি  তার অভিনয় এবং লেখক সত্ত্বা নজর কেড়েছিল হাজার হাজার সাধারন মানুষের। জন্ম ১৯৬৩ সালের ৩১শে আগষ্ট । যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইকোনমিকসে ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। লেখালেখি করা আভ্যাস ছিল, অবশেষে ছাত্র জীবনের অবসান ঘটিয়ে তিনি প্রবেশ করেন চলচ্চিত্র জগতে ।

Birthday of Bengali Great Film Maker RITUPARNO GHOSH.

Birthday of Bengali Great Film Maker RITUPARNO GHOSH.
সাধারণ মানুষকে অনেক খুশির মুহুর্ত উপহার দিয়েছেন আমাদের পরিচালক । তার সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে বহু মানুষ ভেসেছেন তাদের দৈনন্দিন জীবনের সুখ দুঃখের সাগরে। তার সৃষ্ট প্রথম ছবির নাম হীরের আংটি , এরপর তিনি একের পর এক ছবি উপহার দিয়েছেন মানুষকে। দহন , বাড়িওয়ালী , উৎসব, তিতলি , চোখের বালি, খেলা , চিত্রাঙ্গদা , নৌকাডুবি ইত্যাদি । ২০১৩ সালের ৩০ শে মে শোকস্তব্ধ হয় সারা দেশে , আমরা হারাই আমাদের পরিচালকে । তবে তিনি জীবিত আছেন আজও তার অমর সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে। আজ তার জন্মদিবস উপলক্ষে তাকে জানাই জন্মদিবসের অনেক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা। অনেক নতুন ভাবনা ভাবতে শিখিয়েছো তুমি , অনেক কিছুই পাওয়ার কথা ছিল আমাদের যা আমরা হারিয়েছি । সবশেষে একটাই কথা বলার তোমায় তুমি দেশবাসীর অন্তরে ছিলে , আছো এবং থাকবে চিরকাল ।

DIRECTOR's Choice

Remember Rituparno Ghosh

EPISODE NAME : ABAHAMAN RITU
DATE : 30.08.2019 - 01.09.2019

DIRECTION : DEEPJYOTI MODAK
CONTENT : DEEPJYOTI MODAK & PAYEL MUKHERJEE
EDITING : TANMOY ROY
GRAPHICS : AYAN & PRIYANKA

#DIRECTOR's Choice

Post a Comment

0 Comments